ভোলা আলীনগরে স্ত্রী দা দিয়ে কুপিয়ে নিজ স্বামীকে হত্যা করেন।

0
14

দৈনিক ভোলা সময় নিউজ।

ভোলা প্রতিনিধি,
ভোলায় স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে স্ত্রী
নেপথ্যে সৎ ময়েকে ধর্ষণ মাদক কারবার সহ সমাজবিরোধী কাজ।

ভোলায় মাদক সেবী ও মাদক ব্যবসায়ী বহুল আলোচিত টিটব মুন্সীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে তার ২য় স্ত্রী নুরনাহার বেগম।
এর কারণ হিসেবে স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, সৎ মেয়েকে ধর্ষণ এবং মেয়ের পূর্বের বাবাকে হত্যা। এ ভয়ঙ্কর হত্যার ঘটনায় নিহতের স্ত্রী নুরনাহার বেগম(৩৫) কে গ্রেপ্তার করেছেন পুলিশ। রোববার (২৪ অক্টোবর) সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। নিহত ফরহাদ হোসেন টিটব মুন্সি (৪৮) ভোলা সদর উপজেলার উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের জয়গুপি গ্রামের জরুমুন্সি বাড়ির মৃত বেলায়েত হোসেন মুন্সীর ছেলে। জানাগেছে, প্রায় ডজন খানেক মামলার আসামী টিটব মুন্সী প্রায় সময়ই মাদক সেবন করে মাতাল জীবন জাপন করত। তার প্রথম স্ত্রীর নাম রিতু বেগম। প্রায় ৬/৭ বছর আগে টিটব স্থানীয় আকবর নামে এক যুবককে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে তার স্ত্রী নুরনাহার বেগমকে ২য় বিয়ে করে। বিয়ের সময় নুর নাহারের কাছে আকবরের ঘরের একজন কন্যা সন্তান ছিল। কিছু দিন পর আকবর ও নুরনাহারের কিশোরী মেয়ের উপর কু-নজর পরে টিটু হয়বের। প্রায় এক বছর আগ থেকে টিটব নুরনাহারের মেয়েকে বিভিন্ন ভবে উক্তোত্য করে আসছিল। স্থানীয় সূত্রে আরো জানাগেছে, টিটুব নুরনাহারের মেয়েকে বিভিন্ন ভয় ভীতি দেখিয়ে একাধিক বার ধর্ষণ করে। এক সময় মেয়ে এ বিষয়টি বলে দেয় মা নুরনাহারের কাছে। এ বিষয়টি, নুর নাহারের পূর্বের স্বামীকে হত্যা ও প্রথম স্ত্রী রিতুকে কেন্দ্র করে নুরনাহার ও টিটবের মধ্যে শুরু হয় সংঘাত।
পুলিশ সুত্রে জানাযায়, টিটব আলীনগর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের রুহিতা গ্রামে নতুন ঘর তুলে স্ত্রী নুরনাহার বেগমকে নিয়ে বসবাস করে আসছিল। কিন্তু উল্লেখিত বিষয়টি নিয়ে প্রায়ই স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া হতো। গত শনিবার দিবাগত রাতে উভয়ের মধ্যে ঝগড়া হলে নুরনাহার প্রথমে টিটুবের চোঁখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেন। পরে দা দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে। হত্যাকারী ক্ষান্ত হননি টিটুবের ডান পা কেটে টুকরো টুকরো করে একটি পাতিলে ভরে রাখে।
পরের দিন সকালে নুরনাহার দা হাতে নিয়ে ঘরের দরজায় বসে থাকে এবং চিৎকার করে নাকি বলেছে আমি ওকে রান্না করে খাব।

ওই মুহুর্তে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।
এ ঘটনায় ভোলা সদর থানার ওসি এনায়েত হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. কবির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে নিহতের স্ত্রী নুরনাহার বেগমকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করেন। হত্যার সঙ্গে আর কেউ জড়িত আছে কি-না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নিহতের পরিবার থেকে হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

পূর্ববর্তী খবরমহাসড়কে বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মা ও শিশু নিহত।
পরবর্তী খবরভোলা ধনিয়া ইউনিয়নের ছোট আলগী গ্রামে ডেকে নিয়ে মারধর এতে আহত-১