তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রস্তাবিত খসড়া চুড়ান্তের পক্ষে মতামত দিলো দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মানুষজন।

0
1

তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রস্তাবিত খসড়া চুড়ান্তের পক্ষে মতামত দিলো দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মানুষজন

আশিকুর রহমান শান্ত
ভোলা প্রতিনিধি

গ্লোবাল অ্যাডাল্ট টোব্যাকো সার্ভে (গ্যাটস) ২০১৭ সালের রিপোর্টে দেখা যায়, বাংলাদেশে ১৫ বছরের ঊর্ধ্ব হতদরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে তামাক ব্যবহারের হার ৪৮ শতাংশ, সংখ্যায় প্রায় ১ কোটি ৮১ লাখ। অন্যদিকে, শহরের (২৯ দশমিক ৯ শতাংশ) তুলনায় গ্রামে বসবাসকারীদের মধ্যে তামাক ব্যবহারকারীর হার অনেক বেশি (৩৭ দশমিক ১ শতাংশ), সংখ্যায় প্রায় ১ কোটি ৪০ লক্ষ। এই বিশাল দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে তামাকের ভয়াল থাবা থেকে বাঁচাতে প্রয়োজন একটি শক্তিশালী তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন।

এ লক্ষ্যে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ডেভেলপমন্টে অর্গানাইজেশন অব দ্য রুরাল পূওর (ডরপ) এর অ্যাডভোকেসি অফিসার তরুণ কান্তি দাশ এর সঞ্চালনায় গত রবিবার, ২৮ আগস্ট, ২০২২ ভোলা সদরের জিএফসি রেস্তোরাঁর হল রুমে ৩০ জন দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মানুষ নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রস্তাবিত খসড়া ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর করণীয়” বিষয়ক একটি আলোচনা সভা পরিচালনা করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী সকলকে ডরপ এর পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রস্তাবিত খসড়ার বিষয়ে অবহিত করা হয় এবং এ বিষয়ে তাদের মন্তব্য নেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি অধ্যাপক রুহুল আলম জাহাঙ্গীর বলেন, ডরপ কর্তৃক উপস্থাপিত আলোচ্য বিষয়গুলো আমাদের প্রত্যন্ত অঞ্চলের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আয়ের একটা বড় অংশ তামাক ব্যবহার করার কারণে নষ্ট হয়। তাই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রস্তাবিত খসড়া যেমন- ভ্রাম্যমান দোকানে বা ফেরি করে তামাকজাত দ্রব্য বিক্রি নিষিদ্ধ করা, তামাকজাত দ্রব্যের প্যাকেট, মোড়ক ও কৌটার আকার আয়তন, ওজন এবং উহাতে তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের সংখ্যা ও পরিমাণ বিধি দ্বারা নির্ধারিত হওয়ার ইত্যাদি বিষয়গুলো আমাদের জনসাধারণের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অবদান রাখবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

সভাপতির বক্তব্যে প্রবীণ সাংবাদিক আলহাজ্জ্ব মোঃ আবু তাহের বলেন, গ্রামাঞ্চলে প্রায় প্রতিটা ঘরেই নারীরা পানের সাথে তামাক গ্রহণ করে থাকেন। আদতে এই তামাক আর বিড়ি-সিগারেটের মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। তাই গ্রামাঞ্চলে নারীদের মাঝে তামাক ব্যবহারের হার কমাতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক খোলা তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয় নিষিদ্ধ করার আইনসহ প্রস্তাবিত খসড়াটি দ্রুত বাস্তবায়ন করার দাবি জানাচ্ছি।

এছাড়া ডরপ্ আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী দরিদ্র জনগোষ্ঠীর লোকজন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রস্তাবিত খসড়া দ্রুত চুড়ান্তের পক্ষে মতামত প্রদান করেন এবং অলোচনার বিষয়গুলো নিয়ে তাদের পাড়া-প্রতিবেশিদের সাথে মত-বিনিময়ের অঙ্গীকার করেন। উল্লেখ্য, উক্ত অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডরপ এর মিডিয়া ও অ্যাডভোকেসি কো- অর্ডিনেটর আরিফ বিল্লাহ্, সাংবাদিক মোজাম্মেল হক মিলন এবং এলাকার অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

পূর্ববর্তী খবরতামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রস্তাবিত খসড়া চুড়ান্তের পক্ষে মতামত দিলো দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মানুষজন।
পরবর্তী খবরচরফ‍্যাসনে গরু চুরির অপবাদ দিয়ে চার জেলে কে বেধড়ক মারধর।