চরফ্যাশনে প্রতিপক্ষের হামলায় নারীও শিশুসহ আহত-৫ বসত ঘর ভাংচুর অগ্নিসংযোগ।

0
7

চরফ্যাশনে প্রতিপক্ষের হামলায় নারীও শিশুসহ আহত-৫ বসত ঘর ভাংচুর অগ্নিসংযোগ

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি।

চরফ্যাশন জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের বসত ঘরে হামলা ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় নারী ও শিশুসহ ৫জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন বিবি কুলছুম, আছমা, খাদিজা, সিয়াম ও ইয়াছিন। হামলায় আহতদেরকে চরফ্যাশন উপজেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে হাসপাতাল সুত্রে জানাগেছে। উপজেলার আমিনাবাদ ইউনিয়নের ৯নম্বর ওয়ার্ডে শনিবার গভীর রাতে এঘটনা ঘটে।

কিবরিয়া মোড়াদারের স্ত্রী আছমা জানান, বসত বাড়ির জমি নিয়ে প্রতিপক্ষ ইউনুছ চৌকিদারের সাথে তাদের বিরোধ ছিলো। আদালত তাদের পক্ষে রায় দিলে দুই মাস আগে তারা জমিটিতে ঘর নির্মান পুর্বক বসবাস শুরু করেন। কিন্তু রায়ে অসন্তষ্ট প্রতিপক্ষ ইউনুছ চৌকিদার এবং তার ছেলে ছাদেকসহ বহিরাগত ১৫/২০জন লোক দেশীয় অস্ত্র এবং মরিচেরগুড়া নিয়ে শনিবার গভীর রাতে তাদের বসত ঘরে হামলা চালায়। হামলাকারীরা নারীদের চোখে মরিচের গুড়া নিক্ষেপ করে বসত ঘরটি কুপিয়ে তছনছ করে রান্না ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়। প্রতিবেশীরা ছুটে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশীরা আগুন নিভায়। এঘটনায় নারী ও শিশু সহ ৫জন আহত হয়েছে।

প্রতিবেশীরা জানান, আদালতের রায়ে ক্ষুব্দ ইউনুছ চৌকিদার এবং তার ছেলে ছাদেক বহিরাগত লোক নিয়ে গভীর রাতে পরিবারটির উপর যে হামলা চালিয়েছে তা অমানবিক। ঘটনার পর অভিযুক্ত ইউনুছ চৌকিদার এবং তার ছেলে পালিয়ে যাওয়ায় অভিযোগের বিষয়ে তাদের বক্তব্য জানাযায়নি। তবে তার মেয়ে ইয়াছমিন জানান, আমাদের জমিতে অন্যায় ভাবে তারা ঘর তুলেছে। আমরা আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেছি। হামলার বিষয়ে আমরা কিছু জানিনা।

চরফ্যাশন থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই নাজমুল ইসলাম জানান, এঘটনায় গোলাম কিবরিয়া বাদী হয়ে এজাহার দাখিল করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পূর্ববর্তী খবরপ্রবাসীদের বোকা বানিয়ে চাঁদা তুলে আত্মসাৎ করার অভিযোগ।
পরবর্তী খবরচরফ্যাশনে বৃদ্ধা ভিক্ষুকের দায়িত্ব নিলেন সমাজসেবা অফিসার।